TIN থাকলেই আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক

 

 

১৬ অক্টোবর, ২০২০ নারায়ণগঞ্জ:  অর্থ আইন-২০২০ এ আয়কর রির্টান দাখিলে পরিবর্তন এসেছে। ২০১৯-২০২০ কর বর্ষে টিআইএন থাকলেও সকলের আয়কর রির্টান দাখিল বাধ্যতামূলক ছিল না।TIN থাকলেই আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক

কিন্তু ২০২০-২০২১ করবর্ষে টিআইএনধারী সকলকের জন্যই রির্টান দাখিল বাধ্যতামূল করা হয়। যার ইঙ্গিত মাননীয় অর্থমন্ত্রী তাঁর ২০২০-২০২১ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় দিয়েছিলেন। গত ১লা সেপ্টেম্বর , জাতীয় রাজস্ব র্বোড আয়কর নির্দেশিকার মাধ্যমে তা স্পষ্ট করেছে। আয়কর  নির্দেশিকা-২০২০ এর বাধ্যতামূলক আয়কর রিটার্ন  দাখিল অংশে প্রথমেই বলা হয়েছে , যাদের ১২ ডিজিটের টিআইএন রয়েছে তাদের আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক। তবে কিছু ব্যতিক্রমও রয়েছে।

 

আয়কর রির্টান কারা দাখিল করবেন

কারা আয়কর রির্টান দাখিল করবেন তা দুই ভাগে চিহ্নিত করা যায়, যথা:-

(ক). যাদের করযোগ্য আয় রয়েছে; এবং

(খ) যাদেরকে আবশ্যিকভাবে রির্টান দাখিল করতে হবে।

TIN থাকলেই আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক

 

করযোগ্য আয়ের ভিত্তিতে যাদেরকে রির্টান দাখিল করতে হবে

১. কোন ব্যক্তি-করদাতার (individual) আয় যদি বছরে ৩,০০,০০০ টাকার বেশি হয়;

২. মহিলা এবং ৬৫ বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সের করদাতার আয় যদি বছরে ৩,৫০,০০০ টাকার বেশি হয়;

৩. গেজেটেডভুক্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা করদাতার আয় যদি বছবে ৪,৭৫,০০০ টাকার বেশি হয়।

  আরো পড়ুন: সঞ্চয়পত্র সম্পর্কে প্রশ্ন ও উত্তর

 

যাদের আবশ্যিকভাবে রির্টান দাখিল করতে হবে

১. যিনি ১২ ডিজিটের টিআইএন প্রহণ করেছেন;

২. করদাতার মোট আয় করমুক্ত সীমা অতিক্রম করলে;

৩. আয় বছরের পূর্ববর্তী তিন বছরের যে কোন বছর করদাতার কর নির্ধারণ হয়ে থাকে বা তার আয় করযোগ্য হয়ে থাকে;

৪. করদাতা যদি কোন কোম্পানির শেয়ারহোল্ডার পরিচালক বা শেয়ারহোল্ডাল employee হন;

 

৫. করদাতা যদি কোন ফার্মের অংশীদার হন;

৬. করদাতা যদি সরকার অথরা সরকারের কোন কর্তৃপক্ষ, কর্পোরেশন, সত্ত্বা বা ইউনিটের বা প্রচলিত কোন আইন, আদেশ বা দলিলের মাধ্যমে গঠিত কোন কর্তৃপক্ষ, কর্পোরেশন, সত্ত্বা বা ইউনিটের কর্মচারী (employee) হয়ে বছরের যে কোন সময় ১৬,০০০ টাকা বা তদূর্ধ্ব পরিমাণ মূল বেতন আহরণ করে থাকেন;

৭. করাদাতা যদি কোন ব্যবসায় বা পেশায় নির্বাহী বা ব্যবস্থাপনা পদে (যে নামেই অভিহিত হোক না কেন) বেতনভোগী কর্মী (employee ) হন;

৮. করদাতার আয় কর অব্যাহতি প্রাপ্ত বা হ্রসকৃত হারে করযোগ্য হয়ে থাকে;

TIN থাকলেই আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক

৯. করদাতা যদি মোটর গাড়ির মালিক হন (মোটর গাড়ি বলতে জীপ বা মাইক্রোবাসকেও বুঝাবে);

১০. করদাতার যদি কোন সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদ হতে ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণ করে কোন ব্যবসা বা পেশা পরিচালনা করেন ;

১১. করদাতার যদি মূল্য সংযোজন কর আইনের অধীন নিবন্ধিত কোন ক্লারের সদস্যপদ থাকে:

১২. করদাতা যদি চিকিৎসক, দন্ত চিকিৎসক , আইনজীবী, চার্টার্ড একাইন্টেন্ট, কস্ট এন্ড ম্যনেজমেন্ট একাউন্টেন্ট, প্রকৌশলী, স্থপতি অথবা সার্ভেয়ার হিসেবে বা সমজাতীয় পেশাজীবী হিসেবে কোন পেশাজীবী সংস্থার নিবন্ধিত হন;

১৩. করদাতা যদি আয়কর পেশাজীবী (income tax Practitioner) হিসেবে জাতীয় বাজস্ব বোর্ডের বিন্ধিত হন;

১৪. করদাতা যদি কোন বণিক বা শিল্প বিষয়ক চেম্বর বা ব্যবসায়িক সংঘ বা সংস্থার সদস্য হন;

১৫. করদাতা যদি কোন পৌবসভা বা সিটি করপোরেশনের কোন পদে বা সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী হন;

১৬. করদাতা যদি কোন সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা বা কোন স্থানীয় সরকারের কোন টেন্ডারে অংশ গ্রহণ করেন; 

TIN থাকলেই আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক

১৭. করদাতা যদি কোন কোম্পানির বা কোন গ্রুপ আব কোম্পানিজের পরিচালনা পর্ষদে থাকেন;

১৮. করদাতা যদি মটরযান, স্পেস/স্থান, বাসস্থান অথবা অন্যান্য সম্পদ সরবরাহের মাধ্যমে শেয়ারড ইকোনমিক এক্টিভিটিজে অংশগ্রহণ করেন; এবং

১৯. করদাতা যদি লাইসেন্সধারী অস্ত্রের মালিক হন।

TIN থাকলেই আয়কর রিটার্ন বাধ্যতামূলক

তবে নিন্মরূপ ব্যক্তিকরদাতাতের রির্টান দাখিল করতে হবে না-

১. বাংলাদেশে ফিক্সড বেজ নেই এমন অনিবাসীকে;

২. জমি বিক্রয়ের জন্য ১২ ডিজিটের টিআইএন গ্রহণ করেছেন কিন্তু করযোগ্য আয় নেই।

৩. ক্রেডিট কার্ড গ্রহণের জন্য ১২ ডিজিটের টিআইএন গ্রহণ করেছেন কিন্তু করযোগ্র আয় নেই।