২০২০-২০২১ কর বছরে ন্যূনতম কর

 

 

 ১৭, অক্টোরব ২০২০, নারায়ণগঞ্জ:   ২০২০-২০২১ কর বছরে ন্যূনতম কর করমুক্ত  সীমা অতিক্রম করলে করদাতাকে এলাকা ভেদে যে ন্যূনতম কর পরশোধ করতে হয়, তাকে ন্যূনতম কর বলে। মোট আয়ের পরিমাণ করমুক্ত আয়সীমার অধিক হলে প্রদেয় ন্যূনতম আয়করের পরিমান হবে নিন্মরূপ: 

 

 

আরো পড়ুন: জেনে নিন সঞ্চয়পত্র সুদ না মুনাফা

 

এলাকা

ন্যূনতম কর

ঢাকা উ. সিটি কর্পোরেশন, ঢাকা দ. সিটি কর্পোরেশন এবং চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় অবস্থিত করদাতা

৫,০০০

অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় অবস্থিত করদাতা

৪,০০০

 সিটি কর্পোরেশ ব্যতীত অন্যান্য এলাকায় অবস্থিত করদাতা

৩,০০০

 

২০২০-২০২১ কর বছরে ন্যূনতম কর

করমুক্ত সীমার উর্ধ্বে আয় আছে এমন করদাতার প্রদেয় আয়করের পরিমান বা বিনিয়োগজনিত কর রেয়াত বিবিচনার পর প্রদেয় আয়করের পরিমাণ ন্যূনতম আয়করের চেয়ে কম, শূন্য বা ঋনাত্মক হলেও তাকে প্রযোজ্য হারে ন্যূনতম আয়কর পরিশোধ করতে হবে

চিঠিতে আরও বলা হয়, অর্থ বিভাগ ২০০৯ সালের ১৯ অক্টোবর জেনারেল প্রভিডেন্ট ফান্ড রুলস, ১৯৭৯–এ ‘সুদ’ শব্দের পরিবর্তে ‘সুদ অথবা ইনক্রিমেন্ট’

শব্দ প্রতিস্থাপন করেছে।

এই পরিপ্রেক্ষিতে ভবিষ্য তহবিলের হিসাব দেওয়া সম্পর্কিত বিদ্যমান ফরমে ও তহবিলসংক্রান্ত সব ক্ষেত্রে ‘সুদ বা ইনক্রিমেন্ট’–এর পরিবর্তে ‘মুনাফা’ শব্দটি প্রতিস্থাপন করতে হবে।

সঞ্চয় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সামছুন্নাহার বেগম প্রথম আলোকে বলেন, ‘সরকারের যে দপ্তর যে নামেই ডাকুক না কেন, আমরা গ্রাহকদের সুদ দিই না, মুনাফা দিই।’

জেনে নিন সঞ্চয়পত্রের ‘সুদ’ না ‘মুনাফা’

অর্থ বিভাগের এ চিঠি গত ৯ জুলাই পেলেও হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (সিজিএ) তা নিয়ে বসে আছে সাড়ে ৫ মাস ধরে।

বাংলাদেশের মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী এবং অর্থসচিব আবদুর রউফ তালুকদারকেও ওই চিঠির অনুলিপি দেওয়া হয়।

তাঁরাও এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেননি।
লাখ লাখ বিনিয়োগকারী, পেনশনধারী ও সরকারি কর্মচারীদের নিয়ে এই খামখেয়ালি বন্ধ করা দরকার বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।